নামাজে হাত বাঁধবেন কীভাবে?

নামাজে হাত বাঁধবেন কীভাবে?

নামাজে হাত বাঁধতে হয়। তাকবিরে তাহরিমা ‘আল্লাহু আকবার’ বলে উভয় হাত কানের লতি পর্যন্ত ওঠিয়ে উভয় হাত বাঁধার কথা এসেছে হাদিসে। কিন্তু তাকবিরে তাহরিমার পর উভয়হাত বাঁধার নিয়ম কী? ডান হাত উপরে থাকবে; নাকি বাম হাত উপরে থাকবে? এ সম্পর্কে ইসলামের নির্দেশনা কী?

হ্যাঁ, তাকবিরে তাহরিমার পর উভয় হাত বাঁধার ব্যাপারে হাদিসে পাকে সুস্পষ্ট দিকনির্দেশনা এসেছে। আল্লাহু আকবার বলে উভয় হাত কান পর্যন্ত ওঠিয়ে বাম হাতের ওপর ডান হাত রাখা। এ সম্পর্কে হাদিসের একাধিক বর্ণনায় এসেছে-
১. রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাঁর ডান হাতকে বাম হাতের উপর রাখতেন।’ (মুসলিম, আবু দাউদ)

২. নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলতেন, ‘আমরা আম্বিয়ার দল তাড়াতাড়ি ইফতার করতে, দেরিতে সাহরি খেতে এবং নামাজে ডান হাতকে বাম হাতের উপর রাখতে আদেশ পেয়েছি।’ (ত্বাবারানী, মুজাম, মাজমাউয যাওয়াইদ,হাইছামি)

৩. হজরত ইবনে মাসউদ রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, একবার তিনি তার ডান হাতের উপর বাম হাত রেখে নামাজ আদায় করলে নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তা দেখতে পেয়ে তাঁর বাম হাতের উপর ডান হাতকে রাখেন।’ (মুসনাদে আহামদ, আবু দাউদ)

৪. হজরত সাহল বিন সাদ রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, লোকদের নির্দেশ দেওয়া হত যে, নামাজে প্রত্যেক ডান হাত বাম হাতের উপর রাখবে।’ (বুখারি)

৫. হজরত ওয়াইল বিন হুজর রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, তিনি ডান হাতকে বাম হাতের পিঠ, কব্জি ও প্রকোষ্ঠের উপর রাখতেন। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম নিজের ডান হাত দিয়ে বাম হাতের কব্জি ও জোড়া আঁকড়ে ধরতেন।’ (আবু দাউদ, নাসাঈ, ইবনে খুযাইমা, ইবনে হিব্বান)

কখনো কখনো ডান হাত দ্বারা বাম হাতকে ধারণ করতেন বলে হাদিসের বিভিন্ন বর্ণনা থেকেও প্রমাণিত। এ কারণেই নামাজে তাকবিরে তাহরিমার পর বাম হাতের ওপর ডান রাখা এবং আঁকড়ে ধরা সুন্নাত।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে নামাজে তাকবিরে তাহরিমা ‘আল্লাহু আকবার’ বলে উভয় হাত বাঁধার ক্ষেত্রে বাম হাতের ওপর ডান হাত রেখে সুন্নাতি আমল করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

Source: